• f
  • t
  • g+

সভাপতিকে নিয়ে অপপ্রচার

আব্দুল মালেক আকন্দ এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা

আপলোড : ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই ২০২০

কুমিল্লা প্রতিদিন :
  • শহীদুজ্জামান রনি, মেঘনা উপজেলা সংবাদদাতা-কুমিল্লা ॥
image

কুমিল্লার মেঘনা উপজেলার চন্দনপুর এম এ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক আকন্দ এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য প্রদর্শন করা ও স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কার্যকলাপে লিপ্ত থাকায় এলাকাবাসী ২৫/০৭/২০২০ খ্রিঃ শনিবার বেলা ১১ টার সময় উক্ত বিদ্যালয়ে বিক্ষোভ শেষে প্রতিবাদ সভা করে।

উপস্থাপনা করেন চন্দনপুর এম এ উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারি শিক্ষক দেলোয়ার মাস্টার।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব সাইফুল্লাহ মিয়া রতন শিকদার চেয়ারম্যান মেঘনা উপজেলা পরিষদ , আহসান উল্লাহ মাস্টার চেয়ারম্যান চন্দনপুর ইউনিয়ন পরিষদ, অভিভাবক সদস্য বজলুর রশিদ, মোস্তাক আহমেদ, সিনিয়র সহকারি শিক্ষক জহিরুল ইসলাম, অভিভাবক দেলোয়ার হোসেন মাস্টার, মোঃ আসাদ মিয়া।

এসময় বক্তারা বলেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থী শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের সাথে দুর্ব্যবহার স্কুলের টাকা আত্মসাৎ বিপুল ভোটে নির্বাচিত স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি উপর মিথ্যা মামলা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যে অপপ্রচার যাহা একজন সম্মানী মানুষের সম্মানহানি কোচিং বাণিজ্য ও কোচিং এর টাকা আত্মসাৎ সহ নানা অভিযোগ।

উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ সাইফুল্লাহ মিয়া রতন শিকদার এর বক্তব্যে বলেন আমি ফেসবুক ও বিভিন্ন গণমাধ্যম এর মাধ্যমে বিষয়টি অবগত হই এবং এরপর এই আজ এখানে আসা আমি যতটুকু জানি ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ফরিদ আজিজ সাহেব একজন ভালো লোক উনি চন্দনপুর এম এ উচ্চ বিদ্যালয় সভাপতি হয়ে এসেছেন এটা চন্দনপুর এম এ উচ্চ বিদ্যালয়ের সৌভাগ্য উনি চাইলে কুমিল্লার যেকোনো বড় কোন প্রতিষ্ঠানে যাইতে পারতেন উনি এসেছিলেন বিদ্যালয়ের একটা পরিবর্তন ঘটানোর জন্য ওনার ও স্কুলের প্রধান শিক্ষক মালেক আকন্দ এর মধ্যে যে বিষয়টি এটি তদন্ত কমিটি গঠন করে তদন্ত কমিটির মাধ্যমে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে এটা আইনি প্রক্রিয়া দিন এটা নিয়ে কোন অপপ্রচার অথবা অপব্যবহার না করার অনুরোধ করছি। উনি মেঘনার সন্তান হিসাবে মেঘনাকে নিয়ে ওনার দায়িত্ববোধ আছে উনাকে জড়িয়ে লেখালেখি এগুলো আমাদের লজ্জার বিষয় আমি আবারো বলছি প্রধান শিক্ষক মালেক আকন্দ এর বিষয়টি আইনের মাধ্যমে বিচার করবে উনি দোষী হলে উনার বিচার করবেন আর নির্দোষী হলে আইনি তাকে ছেড়ে দিবে এটা নিয়ে আমরা নিজেদের মধ্যে কাদা ছোড়াছুড়ি না করি।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মালেক আকন্দ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে উনি ফোন রিসিভ করেননি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মজিবর আকন্দ, বশির আহমেদ, রহমান মেম্বার, মোঃ তপন, স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী বৃন্দ প্রমুখ ।